জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম কর্তৃক প্রতিবাদ সভা

জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের প্রতিবাদ সভা

গত ২৬/০৭/২০২১ ইং তারিখ সোমবার রাত ৮.০০ টায় জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম কর্তৃক জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। ঈদুল আযহার তৃতীয় দিনে “চ্যানেল আই” তে বেলা ২.৩০ মিনিটে “ঘটনা সত্য” নামে একটি নাটক প্রচারিত হয়। যে নাটকে নেতিবাচক ভ্রান্তিকর তথ্য তুলে ধরা হয় যে, বাবা-মায়ের অপকর্মের ফলে প্রতিবন্ধী শিশুর জন্ম হয়। উক্ত নাটকটি সম্প্রচারের পর সারা বাংলাদেশে অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন ও অন্যান্য সকল ধরনের প্রতিবন্ধী শিশু ও ব্যক্তিগনের পিতা-মাতা এবং অভিভাবকবৃন্দ মারাত্বকভাবে মানসিকভাবে আহত ও ব্যথিত হয়েছেন। জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম থেকে সারা বাংলাদেশের সদস্য সংগঠনকে সাথে নিয়ে গত ২৬ জুলাই ২০২১ তারিখে ভার্চূয়ালী প্রতিবাদ সভা করা হয়। সভায় জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম এর পক্ষ থেকে বিভিন্ন গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উক্ত নাটকের নিকৃষ্ট ও নেতিবাচক হেয় তথ্য প্রচার করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং উক্ত নাটকের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের শাস্তি দাবি করেন। প্রতিবাদ সভায় বলা হয় গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার দুটি আইন পাশ করেছেন। প্রতিবন্ধী অধিকার ও সুরক্ষা আইন ২০১৩ ও নিউরো ডেভেলপমেন্টাল সুরক্ষা ট্রাষ্ট আইন ২০১৩। পাশাপাশি উক্ত দুটি আইনের বিধিও পাশ হয়েছে। প্রতিবন্ধী অধিকার ও সুরক্ষা আইন ২০১৩ এর ৩৭ এর ৪ ধারা অনুযায়ী কোনো ব্যক্তি পাঠ্যপুস্তকসহ যে কোন প্রকাশনা এবং গনমাধ্যমে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বা প্রতিবন্ধতিা সম্পর্কে নেতিবাচক, ভ্রান্ত ও ক্ষতিকর ধারনা প্রদান বা নেতিবাচক শব্দের ব্যবহার বা ব্যবহারের মাধ্যমে ব্যঙ্গ করিলে উহা এ আইনের অধীন অপরাধ হইবে এবং তিনি উক্ত অপরাধের জন্য অনধিক ৩ (তিন) বছরের কারাদন্ড বা অনধিক ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকা অর্থ বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হইবেন। অতঃপর সভার সকলের আলোচনা মোতাবেক সমাজকল্যান মন্ত্রনালয় ও তথ্য মন্ত্রনালয় কে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম কতৃক চিঠি ও উকিল নোটিশ প্রেরনের সিদ্ধান্ত সর্বসম্মতিক্রমে গৃহিত হয়।