জাতীয় কর্মপরিকল্পনা(খসড়া) প্রণয়ন কর্মশালা

workshop on national strategy for rights and protection act of Person with Disability

২৭ – ২৮ মার্চ ২০১৭ সকাল ৯:০০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত “আপন উদ্যোগ ফাউণ্ডেশন” লালমাটিয়া, ঢাকা

জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন ইতোপূর্বে তৈরীকৃত প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩ এর কর্মপরিকল্পনাটি অধিক সমৃদ্ধ করার লক্ষ্যে এবং নিউরো ডেভেলাপমেন্টাল সুরক্ষা ট্রাস্ট আইন, ২০১৩, এসডিজি, সপ্তম পঞ্চম বার্ষিকী পরিকল্পনা ইনচিওন স্ট্রাটিজি প্রভৃতি দলিলসমূহের আলোকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য একটি কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এরই প্রেক্ষিতে গত ১৯ অক্টোবর, ২০১৬ অনুষ্ঠিত জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের আইন ও নীতিমালা বিষয়ক কমিটির ৪৫ তম সভায় জাতীয় কর্মপরিকল্পনার (খসড়া) তৈরীতে প্রাথমিক ভাবে কর্মদলের সদস্যগনের নাম প্রস্তাব করা হয়। জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন বিগত ০১ মার্চ, ২০১৭ তারিখে জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামকে প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক জাতীয় কর্মপরিকল্পনার (খসড়া) প্রণয়নের জন্য পত্র প্রেরণ করে। কর্মদলটি কয়েকটি সভা করে। সভার সিদ্ধান্তের আলোকে জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম গত ২৭ – ২৮ মার্চ ২০১৭ সকাল ৯:০০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত দুইদিন ব্যাপী জাতীয় কর্মপরিকল্পনা(খসড়া) প্রণয়ন কর্মশালা “আপন উদ্যোগ ফাউণ্ডেশন” (বাড়ি-৮/১৪, ব্লক-সি, লালমাটিয়া, ঢাকা-১২০৭, মিনার মসজিদের বিপরীত দিকে) আয়োজন করে। কর্মশালায় জাতীয় কর্মপরিকল্পনা (খসড়া) প্রণয়ন বিষয়ক কর্মদলের সদস্যগণ ছাড়াও প্রতিবন্ধী ব্যক্তি, বিভিন্ন ধরনের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে কর্মরত সংগঠনের প্রতিনিধিগণ এবং জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের সভাপতি, মহাসচিব ও জাতীয় নির্বাহী সদস্যগণের মধ্যে প্রতিবন্ধী সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বিষয়ক জাতীয় কর্মপরিকল্পনা প্রনয়নের কর্মদলের প্রথম সভা

meeting on national strategy

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ বেলা ৩:০০টা জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের সভাকক্ষ‌ে

প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বিষয়ক জাতীয় কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ণের কর্মদলের প্রথম সভায় ড. সেলিনা আক্তার, মহাসচিব, জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম, উপস্থিত সকল সদস্যদের শুভেচ্ছা জানিয়ে সভার কাজ শুরু করেন। অতঃপর তিনি জাতীয় কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ণে এ যাবৎকালীন সকল কার্যক্রম তুলে ধরেন। তিনি তার বক্তব্যে বিগত সময়ে বিভিন্ন আইন, নীতিমালা, ও কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ণে সরকারের সহযোগী হিসেবে কার্যক্রম সম্পাদনে জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের অভিজ্ঞতা উল্লেখ করেন। এছাড়াও তিনি উল্লেখ করেন যে, অতীতের ন্যায় এবারও সরকার প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বিষয়ক জাতীয় কর্মপরিকল্পনা খসড়া প্রনয়ণে সরকারের সহযোগী হিসেবে জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামকে দায়িত্ত্ব পালনের মৌখিক সম্মতি প্রদান করে। অতঃপর তিনি ডাঃ নাফিসুর রহমানকে সভাটি পরিচালনার দায়িত্ত্ব দেন। ডাঃ নাফিসুর রহমান তার বক্তব্যের শুরুতেই জাতীয় কর্মপরিকল্পনার সর্বশেষ খসড়া প্রনয়ণে সহযোগিতার জন্য এ্যাকসেস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন কে ধন্যবাদ জানান এবং জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক দলিল সমূহের আলোকে কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ণের প্রয়োজনীয়তা ব্যক্ত করেন। এরপর আলোচ্যসূচী অনুযায়ী আলোচনা শুরু হয় এবং এর প্রেক্ষিতে নিম্নে উল্লেখিত সিদ্ধান্তসমূহ গৃহিত হয়।

আলোচ্যসূচী- ১ :

দলের কর্মপরিকল্পনা তৈরী ও দায়িত্ত্ব বন্টন

১. সভায় সর্বসম্মতিক্রমে জনাব আশরাফুন নাহার মিষ্টিকে কর্মদলের সদস্য হিসেবে অর্ন্তভূক্ত করণের অনুমোদন হয়।

২. এ বিষয়ে অতিসত্তর সরকারের নিকট থেকে লিখিত অনুমতি সংগ্রহ করা।

৩. ১ম ধাপে জাতীয় ও আর্ন্তজার্তিক দলিলসমূহের প্রতিফলনে কর্মপরিকল্পনার প্রাথমিক কাঠামো তৈরীর লক্ষ্যে ৩ দিন ব্যাপী কর্মশালার আয়োজন করা। কর্মশালার স্থান হিসেবে কুমিল্লা র্বাডকে প্রাথমিক ভাবে নির্বাচন করা হয়।

৪. ২য় ধাপে প্রাথমিক কাঠামো তৈরীর পর এর উপর প্রতিবন্ধিতা নিয়ে কর্মরত সংগঠনসমূহের (ডিপিও) মতামত সংগ্রহের জন্য কর্মশালার আয়োজন করা ।

৫. ৩য় ধাপে বিভাগীয় পর্যায়ে সরকারী -বেসরকারী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও ব্যক্তিবর্গ তথা অংশীজনের মতামত সংগ্রহের জন্য কর্মশালার আয়োজন করা।

৬. ৪র্থ বা শেষ ধাপে সংশ্লিষ্ট সকলের মতামতের আলোকে কর্মপরিকল্পনাটি সমৃদ্ধকরনের পর তা জাতীয় পর্যায়ে আলোচনা সভার মাধ্যমে উপস্থাপন করা।

আলোচ্যসূচী- ২ :

পূর্ববর্তী জাতীয় কর্মপরিকল্পনা (খসড়া) পর্যালোচনা

আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ পরবর্তী সভার তারিখ নির্ধারন করা হয়।

আলোচ্যসূচীতে আর কোন বিষয় না থাকায় ড. সেলিনা আক্তার, মহসচিব, জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।