এসডিজি (SDG) ভিএনআর (VNR) প্রতিবেদনে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি তথ্য অন্তর্ভুক্তকরণে ফোকাস গ্রুপ ডিসকাসন

২৭ এপ্রিল ২০১৭ বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় ফোরামের সভাকক্ষে

জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম বাংলাদেশে “সিটিজেনস প্ল্যাটফর্ম অন এসডিজি”এর সক্রিয় সদস্য। এবছরের জুলাই মাসে নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিতব্য “হাই লেভেল পলিটিক্যাল ফোরামে” বাংলাদেশ সরকার এসডিজি’র অগ্রগতির উপর একটি স্বেচ্ছাপ্রণোদিত প্রতিবেদন দেবার ব্যাপারে অঙ্গীকার করেছে। সরকারের পাশাপাশি সুশীল সমাজের পক্ষে এই সিটিজেনস প্ল্যাটফর্মও একটি প্রতিবেদন জমা

দেবার প্রস্তুতি নিয়েছে। এসডিজি’র মূল স্পিরিট হলো “লীভ নো ওয়ান বিহাইন্ড” অর্থাৎ কাউকে পেছনে ফেলে নয় বা কাউকে বাদ দিয়ে নয়। সে কারণেই এসডিজিতে যেমন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সংশ্লিষ্ট বিষয়সমুহকে যত্নসহকারে সন্নিবেশ করা হয়েছে, তেমনই প্রতিবেদনসমুহেও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অবস্থা বা অবস্থানেরও পৃথক বর্ণনার বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। পিছিয়ে পড়া অন্যান্য জনগোষ্ঠীর জন্যও একইভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে এসডিজি প্রক্রিয়ায়। এই প্রতিবেদনটিতে যেন সঠিকভাবে সকল জনগোষ্ঠীর বাস্তব তথ্য উঠে আসে, সেকারণে প্ল্যাটফর্ম বেশ কিছু ফোকাস গ্রুপ ডিসকাশন (এফজিডি) আয়োজন করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৭ এপ্রিল ২০১৭ বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় ফোরামের সভাকক্ষে এফজিডি অনুষ্ঠিত হয়। “সিটিজেনস প্ল্যাটফর্মএর আহবায়ক, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) এর সিনিয়র ফেলো এবং বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ডঃ দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য এটি পরিচালনা করেন। এবারে প্রতিবেদন হবে এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা ১, , , , ৯ এবং ১৪ এর উপর। তাই আলোচনাকে ফলপ্রসূ করার জন্য এই লক্ষ্যমাত্রাসমূহ, এদের টার্গেট, ইন্ডিকেটর এবং এর সাথে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সম্পৃক্ততা বিষয়ে আলোচনার জন্য সকল ধরণের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবর্গ, প্রতিনিধি, অভিভাবক, তাদের উন্নয়ন ও অধিকার আদায়ের লক্ষে নিয়জিত ব্যক্তিবর্গ, জাতীয় নির্বাহী সদস্যগণ, জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরামের সভাপতি ও মহাসচিব এবং সিপিডিএর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ এতে অংশগ্রহণ করেন।

১০ম বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস-২০১৭

Guest and Awrd winner with the Chief Guest Prime Minister Sheikh Hasina at 10th World Autism Awareness Day 2017

২ এপ্রিল, ২০১৭ সকাল ১০টা ওসমানি মিলনায়তন, পল্টন, ঢাকা

গত ২ এপ্রিল, ২০১৭ বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও যথাযোগ্য মর্যাদা ও গুরুত্বের সাথে এবারো ‘১০ম বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস’ ২০১৭ উদযাপন উপলক্ষে ক্রোড়পত্র ও ব্রশিওর প্রকাশ, আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় এর উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানমালায় বরাবরের মত জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউণ্ডেশন, সমাজসেবা অধিদফতর, বাংলাদেশ জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদ এবং জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম দিবসের সকল কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করে। জাতিসংঘ কর্তৃক এবারের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘স্বকীয়তা ও আত্মপ্রত্যয়ের পথে’ (Toward Autonomy and Self Determination)। এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশে ২ এপ্রিল বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উদযাপিত হয়। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার শুভ আগমনের পর অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠিনকতা শুরু হয়। চার ধর্মালম্বীদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থসমূহ পাঠের পর স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব মোঃ জিল্লার রহমান। এরপর বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কৃত স্থায়ী কমিটির সভাপতি জনাব মোঃ মোজাম্মেল হোসেন এমপি এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব মোহাম্মদ নাসিম এমপি। এরপর সভাপতির বক্তব্য প্রদান করেন জনাব নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি, মাননীয় প্রতিমন্ত্রী, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়।

এরপর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা অটিজম সম্পন্ন সফল ব্যক্তি, অটিজম উত্তরণে সফল সমাজকর্মী এবং অটিজম উত্তরণে অবদান রাখা সফল প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা প্রদান করেন এবং ফটোসেশন করেন।এরপর তিনি নীল বাতি প্রজ্বালন করেন এবং তার মুল্যবান বক্তব্য প্রদান ও দিবসের শূভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আগত অতিথিবৃন্দ অটিজম বিষয়ক একটি প্রামাণ্যচিত্র ও অটিস্টিক বন্ধুদের অংশগ্রহণে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন এবং ফটোসেশনে অংশগ্রহণ করেন।

যে ৯জন ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠান পুরস্কার পেয়েছেন তারা হলেন:

অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন সফল ব্যক্তি-০৩ (তিন) জন

১. আদিবা ইবনাত পশলা

২. আদিল মুনিম সাইফুল হক

৩. চৌধুরী গালিব আজিজ অনিন্দ্য,

অটিজম উত্তরণে অবদান রাখা সফল সমাজ কর্মী০৩(তিন) জন

১. ডাঃ রওনাক হাফিজ,

২. বেগম মারুফা হোসেন,

৩. কর্ণেল মোঃ শহীদুল আলম,

অটিজম উত্তরণে অবদান রাখা সফল প্রতিষ্ঠান ০৩(তিন)টি

১. সুইড বাংলাদেশ,

২. প্রজেক্ট ডাইরেক্টর,ইনষ্টিটিউট অব পেডিয়াট্রিক নিউরোডিজওর্ডার এন্ড অর্টিজম (ইপনা), বিএসএমএমইউ, শাহবাগ, ঢাকা।

৩. ফাউন্ডেশন ফর অর্টিজম রিসার্চ এন্ড এডুকেশন(এফএআরই),